ভারতীয় বাঙালি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান অভিনেত্রী লিসা রে ২০০৯ সালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। একাধিক মেলোমা ধরা পড়েছিল তার। এটি অস্থি মজ্জার প্লাজমা কোষের একটি ক্যান্সার। লিসা রে তার স্ট্যান্ড সেল ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে পেরেছিলেন।

২০১০ সালের এপ্রিলে, তিনি প্রতিস্থাপনের কারণে ক্যান্সারমুক্ত হতে সক্ষম হন। লিসা তার ক্যান্সার যুদ্ধ নিয়ে বারবার বিভিন্ন ইন্টারভিউতে বলেছেন, ‘আমার একজীবনে অনেক জটিল অধ্যায় পাড় করতে হয়েছে। অনেক কিছু দেখেছি, অনেক কিছু শিখেছি। এখন আমি নিজেকে ক্যান্সার গ্রাজুয়েট বলতে পারি। ক্যান্সারমুক্ত হতে গিয়ে এর খুঁটিনাটি অনেক কিছুই এখন আমার নখদর্পনে।’

ক্যান্সারে আক্রান্ত থাকার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে ব্লগ ইয়েলো ডায়েরি লিখতে শুরু করেছিলেন এই অভিনেত্রী। এ ছাড়াও লিসা রে একটি বই ও লিখেছেন। বইটি ক্যান্সার নিয়ে। এতে তিনি তার ক্যান্সার আক্রান্ত দিনগুলো এবং নিজেকে ক্যান্সারমুক্ত করার অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা লিখেছেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি আমার জীবনকে ঈশ্বরের করুণা ও পুরস্কার বলে মনে করি। মরণব্যাধি ক্যান্সার আমাকে জীবনের প্রয়োজনীয়তা বুঝতে শিখিয়েছে। এখন আমি আমার স্বাস্থ্য, খাবার ও ওষুধ সম্পর্কে খুব সচেতন থাকি। যোগ ব্যায়ামকে করেছি জীবনের অপরিহার্য্য অংশ। যোগ ব্যায়াম আমাকে শারীরিক ও মানসিক শক্তি যোগাচ্ছে।’

তথ্যসূত্র