প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে ক্যান্সার প্রতিরোধ করা সম্ভব

ক্যান্সার প্রতিরোধ, শনাক্তকরণ এবং চিকিৎসা বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধিতে সবার একত্রিত হতে হবে।

ক্যানসারের কাছে হারিনি

ক্যানসারের কাছে হারিনি

মার্চের ২৩ তারিখ আমার বায়োপসি রিপোর্ট এল।চিকিৎসক ঘোষণা দিলেন, আমার ক্যানসার হয়েছে। সেদিন ছিল আমার একমাত্র সন্তান আদৃতের জন্মদিন। বাড়িতে উৎসবের বদলে বিষাদের সুর বেজে উঠল। মা-ছেলে মিলে সেদিন জড়াজড়ি করে কেঁদেছিলাম। এমনিতে আমি কাজপাগল মানুষ। কাজের মধ্যে থাকতে বেশি...

read more
ক্যান্সার জয় করে ক্যান্সার নিয়েই গবেষণা

ক্যান্সার জয় করে ক্যান্সার নিয়েই গবেষণা

কিশোর বয়সেই ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই থেকে লড়ছেন, হাসপাতালে ঘুরে ঘুরে অন্যদেরও সাহস জোগাচ্ছেন। কিছুদিন আগে ক্যান্সার থেকে মুক্ত হয়ে সরকারি চাকরিতেও যোগ দিয়েছেন। এখন গবেষণা করছেন ক্যান্সার নিয়েই। দেশে বিশ্বমানের ক্যান্সার হাসপাতাল গড়তে চান নূর-এ-সাফী আহনাফ।...

read more
ক্যান্সার জয়ী সাহসী উদ্যোক্তা সুমনার গল্প

ক্যান্সার জয়ী সাহসী উদ্যোক্তা সুমনার গল্প

পৃথিবীতে দুই ধরনের মানুষ আছে। এক ধরনের মানুষ নিজের নিয়তিকে মেনে নিয়ে যা আছে তাতেই হা হুতাশ করে। আরেক ধরনের মানুষ সংকল্প করে নিজের নিয়তিকে জয় করার। অদম্য স্পৃহা নিয়ে ছুটে সংকল্পের পেছনে। অতীত তখন হার মানে। ভবিষ্যত তাকে বানায় উদাহরণ। সুমনা তেমনি একজন। যিনি নিজের শরীরে...

read more
মরার আগে মরতে চাইনি, ক্যানসারের সঙ্গে লড়েছি

মরার আগে মরতে চাইনি, ক্যানসারের সঙ্গে লড়েছি

রুবিনা গনির বাসায় সেদিন পরিবারের লোকজনদের দাওয়াত ছিল। রান্নাবান্না নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। হঠাৎ বাম স্তনে ঝিলিক করে ওঠার মতো অনুভূতি হয়। পাত্তা না দিয়ে আবার কাজ করা শুরু করেন। ঝিলিক দেওয়া অনুভূতিটা আবার ফিরে আসে। কাউকে কিছু না বুঝতে দিয়ে টয়লেটে গিয়ে বাম স্তন হাত দিয়ে...

read more
ক্যানসার থেকে কোমায় গিয়েও ফিরে এসেছি

ক্যানসার থেকে কোমায় গিয়েও ফিরে এসেছি

২০২১ সাল। অক্টোবরের শেষ। দুর্গাপূজার রং–রোশনাইয়ের পর শহর কলকাতা যেন কিছুটা স্তিমিত। কোথায় যেন একটা বিষণ্নতার সুর। ঠিক এহেন সময়েই তার সঙ্গে আমার আলাপ, বলা যেতে পারে একেবারেই অকস্মাৎ। কাছেপিঠেই তিনি ছিলেন, কিন্তু এতটাই নীরব যে তার উপস্থিতি আমি বুঝতেই পারিনি। যখন...

read more
ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার জয় করা এক কিশোরীর গল্প

ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার জয় করা এক কিশোরীর গল্প

ওভারিয়ান বা ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার এমন একটি অসুখ যা সাধারণত পঞ্চাশোর্ধ নারীদের হয়। এই বয়সী নারীদের মধ্যেও অসুখটি বিরল। কিন্তু মোটে চৌদ্দ বছর বয়েসেই রোগটিতে আক্রান্ত হয় এই কিশোরীটি। তার ডিম্বাশয়ে বেড়ে উঠেছিল ৫ কেজি ওজনের এক টিউমার। প্রথমে ভেবেছিল সে মুটিয়ে...

read more
বারবারা মোরি – ক্যান্সার জয়ের গল্প

বারবারা মোরি – ক্যান্সার জয়ের গল্প

মেক্সিকান এই সুন্দরীকে হৃতিক রোশনের কাইটস চলচ্চিত্র নিশ্চয়ই দেখেছেন! ২৯ বছর বয়সে এই নায়িকার স্তন ক্যান্সার ধরা পড়ে। প্রাথমিক অবস্থায় ক্যান্সার ধরা পড়ার কারণে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন এই নায়িকা। তারপর থেকে তিনি ক্যান্সার সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য অবিরাম কাজ করে যাচ্ছেন।...

read more
বলিউডের মমতাজ – ক্যান্সার জয়ের গল্প

বলিউডের মমতাজ – ক্যান্সার জয়ের গল্প

বলিউড ডিভা মমতাজ ২০০২ সালে ৫৪ বছর বয়সে স্তন ক্যান্সার আক্রান্ত হন। ৬টি কেমোথেরাপি এবং ৩৫টি বিকিরণ নেওয়ার পরে তিনি ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়লাভ করতে সক্ষম হন। তিনি বারবার বলেছিলেন, ‘আমি সহজেই হাল ছাড়ি না। এমনকি মৃত্যুর মুখোমুখি আমাকেও লড়াই করতে হবে।’...

read more
লিসা রে – ক্যান্সার জয়ের গল্প

লিসা রে – ক্যান্সার জয়ের গল্প

ভারতীয় বাঙালি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান অভিনেত্রী লিসা রে ২০০৯ সালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। একাধিক মেলোমা ধরা পড়েছিল তার। এটি অস্থি মজ্জার প্লাজমা কোষের একটি ক্যান্সার। লিসা রে তার স্ট্যান্ড সেল ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে পেরেছিলেন। ২০১০ সালের এপ্রিলে, তিনি প্রতিস্থাপনের...

read more
মনীষা কৈরালা – ক্যান্সার জয়ের গল্প

মনীষা কৈরালা – ক্যান্সার জয়ের গল্প

এই অভিনেত্রী ২০১২ সালে ডিম্বাশয়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। প্রথম দিকে তিনি টেরই পাননি ক্যান্সার তার শরীরে বাসা বেঁধেছে। এরপর তিনি যখন অসুস্থ হয়ে পড়েন; তখন জানা যায় তিনি ক্যান্সারে ভুগছেন। পরবর্তীতে তাকে চিকিত্সার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। নিয়মিত...

read more
ক্যান্সার জয় করে অভিনয়ে ফিরলেন সোনালি

ক্যান্সার জয় করে অভিনয়ে ফিরলেন সোনালি

সোনালি বেন্দ্রে মেটাস্ট্যাটিক ক্যান্সারে আক্রান্ত হন ২০১৮ সালে। তবে ক্যান্সারকে পরাজিত করে তিনি বর্তমানে সুস্থ। সুস্থ হওয়ার পর সম্প্রতি ওটিটি-তে প্রথমবার কাজ করলেন। জি ফাইভের হিন্দি ওয়েব সিরিজ ‘দ্য ব্রোকেন নিউজ’-এ দেখা যাচ্ছে তাকে। দুটি নিউজ চ্যানেলের মধ্যে...

read more
u

ক্যান্সার চিকিৎসার ব্যাপারে রোগী এবং রোগীর আত্মীয় পরিস্কার ধারণা রাখুন।

ক্যান্সার চিকিৎসার ক্ষেত্রে রোগী এবং রোগীর আত্মীয়দের বিশেষভাবে সচেতন থাকতে হয়। কোনো বিষয় না বুঝলে চিকিৎসককে জিজ্ঞাস করুন। কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে সে ব্যাপারে পরিস্কার ধারণা নিয়ে তারপর সঠিক সিদ্ধান্ত নিন। প্রয়োজনে ইন্টারনেটে বিশ্বাসযোগ্য সোর্স থেকে রিসার্চ করে জেনে নিন। ক্যান্সার চিকিৎসায় বিভিন্ন টিমের সাথে কাজ করতে হয়, যেমনঃ হাসপাতালের সার্জারি টিম, কেমোথেরাপি টিম, রেডিওথেরাপি টিম ইত্যাদি। সবাই সবার কাজ সঠিকভাবে পালন করচছে কিনা সে ব্যাপারে যথাসম্ভব খেয়াল রাখুন।

ক্যান্সার চিকিৎসার পাশাপাশি রোগীর মানসিক সুস্থতাও নিশ্চিত করতে হবে। যখন একজন রোগীর ক্যান্সার ধরা পড়ে, তখন রোগী এবং রোগীর আত্মীয়রা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। জীবনের এই কঠিন মুহুর্ত যেন পরিবারটিকে এলোমেলো করে দেয়। তাই ক্যান্সার রোগী এবং ক্যান্সার রোগীর পরিবারকে মানসিকভাবে সাহস দিন, আস্থা দিন, ভরসা দিন। ইতিবাচক কথা বলে তাঁদের আশাবাদী করে তুলুন। 

ক্যান্সার রোগীর মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে মনোযোগ দিতে হবে। আমাদের দেশের প্রথাগত চিকিৎসার পাশাপাশি ক্যান্সার রোগীর মানসিক থেরাপিও প্রয়োজন রয়েছে। যেমনঃ মানসিক পরামর্শ, স্ট্রেস থেরাপি, স্লিপ থেরাপি, ছোটখাট শারীরিক ব্যায়াম - ইত্যাদির ব্যবস্থা করতে হবে।